সর্বশেষ আপডেট ৯ ঘন্টা ৫ মিনিট আগে
আপনি আছেন হোম / বিদেশ / মধ্যপ্রাচ্য / 'আগুন নিয়ে খেলা করছেন ট্রাম্প'

'আগুন নিয়ে খেলা করছেন ট্রাম্প'

প্রকাশিত: ০৭ ডিসেম্বর ২০১৭ ১৩:৫১ টা

বিদেশ ডেস্ক, অনলাইন বাংলাঃ

বিতর্কিত জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প একতরফাভাবে যে স্বীকৃতি দিয়েছেন, তা আগুন নিয়ে খেলার শামিল বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।

একইসাথে ট্রাম্পের ঘোষণাকে ধিক্কার ভরে প্রত্যাখ্যান করেছেন তিনি। মাহমুদ আব্বাস আরো বলেন, জেরুজালেম ফিলিস্তিনের চিরন্তন রাজধানী। বুধবারের এই ঘোষণার পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আর ফিলিস্তিন ও ইসরাইলের মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকায় থাকতে পারে না।

এরআগে ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতির পাশাপাশি তেলআবিব থেকে নিজেদের দূতাবাস সেখানে সরিয়ে নেয়ার কথাও ঘোষণা দিয়েছেন।

ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস বলেন, স্পষ্টতই এটা ইসরাইলের প্রতি একটি পুরস্কার। আর এই স্বীকৃতি যে ফিলিস্তিনের ভূমি ক্রমাগত দখল করতে ইসরাইলকে উৎসাহিত করবে।

অপর দিকে ডনাল্ড ট্রাম্প আগুন নিয়ে খেলছেন বলে ইসরাইলের পার্লামেন্টে মন্তব্য করেছেন ফিলিস্তিনি একজন এমপি।

জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে ট্রাম্প উস্কে দিয়েছেন বিপদের সমূহ আশঙ্কা। এর প্রতিবাদে ক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে ফিলিস্তিনের রাজনৈতিক অঙ্গন। ওই ঘোষণার পর নানা রকম প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করছেন ফিলিস্তিনের নেতৃবৃন্দ।

ফিলিস্তিন-ইসরাইল শান্তি আলোচনাতে যুক্তরাষ্ট্রের আর কোন গ্রহণযোগ্যতা নেই; এ স্বীকৃতিকে ইসরাইলের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের উপঢৌকন বলে উল্লেখ করেছেন প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।

অপর দিকে ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তিন দিনের বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ কর্মসূচীর ডাক দিয়েছেন ফিলিস্তিনের নেতারা।

বুধবার হোয়াইট হাউসে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এ ভাষণের মধ্য দিয়ে জেরুজালেম নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কয়েক দশকের নীতির পরিবর্তন ঘটল। যদিও একে সাধুবাদ জানিয়েছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

ট্রাম্প বলেন, এই সিদ্ধান্তের মানে এই নয় যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মধ্যপ্রাচ্যে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার দৃঢ় অঙ্গীকার থেকে সরে আসছে। দীর্ঘদিনের ইসরাইল-ফিলিস্তিনি সংঘাতের অবসান ঘটাতে আমেরিকা দুই রাষ্ট্র সমাধানকে সমর্থন জানাতে প্রস্তুত, যদি উভয়পক্ষ সেটাই চায়।

ভাষণ দেয়ার আগেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বিষয়টি নিয়ে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতনিয়াহু, ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস, জর্ডানের বাদশা আবদুল্লাহসহ মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশের নেতার সাথে কথা বলেছেন।

জেরুজালেম পবিত্র ভূমি হিসেবে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন উভয়ের কাছেই গণ্য। এর দখল ও নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দুই দেশের দ্বন্দ্বও বহু পুরোনো।

ইসরাইল সব সময়ই জেরুজালেমকে নিজেদের রাজধানী হিসেবে দাবি করে আসছে, পাশাপাশি পূর্ব জেরুজালেম ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের রাজধানী হবে বলে দেশটির নেতারা বলে আসছেন।

তবে ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তে বেশ শঙ্কিত সৌদি আরবসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নেতারা। এ বিষয়ে নিজেদের প্রতিক্রিয়ার কথা জানিয়েছেন তারা। জেরুজালেমে ইসরায়েলের রাজধানী স্থানান্তর ভয়াবহ পরিণতি ডেকে আনবে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছে জর্ডান। একই ধরনের প্রতিক্রিয়া তুরস্কেরও।

কয়েক দশক ধরে জেরুজালেমকে কেন্দ্র করে ফিলিস্তিন এবং ইসরাইলের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।  ১৯৪৮ সাল থেকে জেরুজালেমের পশ্চিম অংশ দখল করে রেখেছে ইসরাইল।

১৯৬৭ সালে সিরিয়া, মিশর এবং জর্ডানের সাথে যুদ্ধে পূর্ব জেরুজালেম দখল করে নেয় তারা। এর ফলে জেরুজালেমের ওপর ইসরাইলের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠিত হয়। তবে জেরুজালেমে ইসরাইলের দখলদারিত্বের এবং কর্তৃত্বের কোন ধরণের স্বীকৃতি দেয় নি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

প্রসঙ্গত, পূর্ব জেরুজালেমকে ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাজধানী হিসেবে দাবি করে ফিলিস্তিন।

অপর দিকে ফিলিস্তিন লিবারেশন অর্গানাইজেশন (পিএলও) এর সেক্রেটারি-জেনারেল সাইব ইরেকাত বলেছেন, জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে শান্তি প্রক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের গ্রহণযোগ্যতা নষ্ট করেছেন ট্রাম্প।

তিনি বলেন, ট্রাম্প শান্তির সম্ভাবনা ধ্বংস করে দিয়েছেন। তিনি পুরো অঞ্চলে অসহিষ্ণুতা ডেকে আনছেন। এই সিদ্ধান্তের বিপরীতে পিএলও-এর কেন্দ্রীয় কাউন্সিলে সভা ডাকা হবে। গ্রহণ করা হবে পরবর্তী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ।

ইরেকাত বলেন, রাজধানী জেরুজালেম ছাড়া ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের কথা ভাবা অর্থহীন। ট্রাম্পের এমন সিদ্ধান্তকে-যুক্তরাষ্ট্রের যে কোন প্রেসিডেন্টের নেয়া সবচেয়ে ভয়ানক সিদ্ধান্ত।

ইসরাইলি পার্লামেন্টের ফিলিস্তিনি সদস্য জামাল জাহালকা বলেছেন, ট্রাম্প আগুন নিয়ে খেলছেন। যারা ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তের পক্ষ নিয়ে আনন্দ প্রকাশ করছেন, তারা আসলে শান্তি ব্যাহত করে বিবাদ উস্কে দিচ্ছেন।

রাজনৈতিক বিশ্লেষক মারওয়ান বিশারা বলেছেন, ট্রাম্প জেরুজালেমকে স্বীকৃতি দেয়া বক্তব্যে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর বুলি তোতাপাখির মতো হুবহু আওড়িয়েছেন।

তিনি বলেন, ফিলিস্তিনের বিষয়ে ইসরাইলের যে মনোভাব, ট্রাম্প তার বক্তব্যে অবিকল তা-ই বলেছেন। ট্রাম্পের বক্তব্যে শান্তি এবং সৌজন্যতার আড়ালে কিছু নাটকীয় ব্যাপার রয়েছে।

মারওয়ান বিশারা বলেন, তিনি বস্তুত ফিলিস্তিনি নাগরিক এবং তাদের অধিকারের ওপর যুদ্ধ ঘোষণা করলেন। যুদ্ধ ঘোষণা করলেন আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এবং দ্বিপাক্ষিক বিরোধ নিস্পত্তিতে প্রণীত আন্তর্জাতিক আইনের প্রতিও।

পাঠক মন্তব্য () টি

হিজবুল্লাহর প্রশংসা, ইরানের সাথে 'উৎকৃষ্ট' সম্পর্ক চান সাদ হারিরি

পাশাপাশি উত্তেজনা নিরসনে ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর ভূমিকায় ভূয়সী প্রশংসা করেছেন সাদ…

ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে ২ ফিলিস্তিনি কিশোর শহীদ

ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকা ও অধিকৃত পশ্চিম তীরের নাবলুস শহরে…

সৌদি অবরোধের অবসানে আন্তর্জাতিক মীমাংসা চায় কাতার

সৌদি আরব ও তার তিন মিত্র দেশের কাতারের ওপর যে অবরোধ আরোপ…

কপিরাইট ২০১৪ onlineBangla.com.bd
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: গুলবুদ্দিন গালীব ইহসান
অনলাইন বাংলা, ৬৯/জি গ্রিন রোড, পান্থপথ (নীচ তলা), ঢাকা-১২০৫।
ফোন: ৯৬৪১১৯৫, মোবাইল: ০১৯১৩৭৮৯৮৯৯
ইমেইল: contact.onlinebangla@gmail.com
Developed By: Uranus BD