সর্বশেষ আপডেট ১৩ ঘন্টা ৪৫ মিনিট আগে
আপনি আছেন হোম / বাংলাদেশ / রাজনীতি / আগামী সংসদ নির্বাচনে বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে সেনা মোতায়েনের দাবি খালেদা জিয়ার

আগামী সংসদ নির্বাচনে বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে সেনা মোতায়েনের দাবি খালেদা জিয়ার

প্রকাশিত: ১২ নভেম্বর ২০১৭ ১৯:২৯ টা

নিজস্ব প্রতিবেদক, অনলাইন বাংলাঃ

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

রবিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত বিএনপির জনসভায় দেয়া এক ঘণ্টা ২ মিনিটের ভাষণে তিনি এ দাবি জানান।

জনগণের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেয়ারও দাবি জানিয়ে খালেদা জিয়া বলেন, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে। কারণ শেখ হাসিনার অধীনে কোনো সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না।

আগামী নির্বাচনে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) ব্যবহারের বিরোধিতা করেন বিএনপি চেয়ারপারসন।

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, বিএনপির সমাবেশে লোক সমাগমে বাধা দিয়ে সরকার ছোট মনের পরিচয় দিয়েছে।

আওয়ামী লীগ সরকারের সমালোচনা করে খালেদা জিয়া বলেন, এরা ক্ষমতায় থেকে জনগণকে যেমন ভয় পাচ্ছে, তেমনি বিভিন্ন দল বিশেষ করে বিএনপিকে ভয় পায়। যার কারণে আজকের সমাবেশে আসা নেতাকর্মীদের বিভিন্ন জায়গায় বাধা দিয়েছে।

তিনি বলেন, এরা যে এত ছোট মনের, আজকে তারা দ্বিতীয় দিনের মতো প্রমাণ করে দিয়েছে। এত ছোট মন নিয়ে রাজনীতি করা যায় না। এরা মানুষকে ভয় পায়। এ জন্য ৭ নভেম্বর আমাদের জনসভা করতে দেয়নি।

বিএনপি চেয়ারপসর বরেন, আজকে অনুমতি দিয়েছে কিন্তু জনগণ যেন আসতে না পারে, সেই ব্যবস্থা করেছে। গণপরিবহন বন্ধ করে দিয়েছে। বাইরের জেলার মানুষ যেন না আসতে পারে। রাজধানীর হোটেলগুলোতে অভিযান চালিয়েছে। অনেক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে।

খালেদা জিয়া বলেন, এমনকি আমিও যেন সমাবেশে আসতে না পারি সেই ব্যবস্থাও করেছে। আমি বাসা থেকে বের হয়ে দেখি রাস্তায় খালি বাস রেখে দিয়েছে।

তিনি বলেন, দলীয় সরকারের অধীনে বিএনপি নির্বাচনে যাবে না। শেখ হাসিনার অধীনে অবশ্যই নয়। দলীয় সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন করতে দেওয়া হবে না।

খালেদা জিয়া বলেন, বহুদলীয় গণতন্ত্রে মত-পথের পার্থক্য থাকবে। তবে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।

বিএনপি চেয়ারপাসন বলেন, সারের দাম বেড়েছে। সরকার কৃষককে মারার ব্যবস্থা করেছে, সাধারণ মানুষকে মারার ব্যবস্থা করেছে। শ্রমিকদের ওপরও নানা রকম অত্যাচার চলছে। তাদের মজুরি বৃদ্ধি পায় না।

খালেদা জিয়া বলেন, আজকে ঘরে ঘরে মানুষের কান্না আর আহাজারি। মানুষ আজকে অত্যাচারিত, নির্যাতিত, নিপীড়িত। তাই এদের হাত থেকে মানুষ মুক্তি চায়। মানুষ পরিবর্তন চায়।

তিনি বলেন, এই পরিবর্তন আমরা বলি আসতে হবে নির্বাচনের মধ্য দিয়ে, ভোটের মধ্য দিয়ে আসতে হবে। এই জন্য মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিতে হবে।

বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার জন্য প্রয়োজন একটা নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন।

এরআগে বিকাল ৩টা ১০ মিনিটে খালেদা জিয়া সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পৌঁছান। সেখানে উপস্থিত দলের হাজারো নেতাকর্মী তাকে স্বাগত জানান।

জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভাষণ দেন খালেদা। দশম জাতীয় নির্বাচনের ১৫ দিন পর ২০১৪ সালের ২০ জানুয়ারি সর্বশেষ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ভাষণ দিয়েছিলেন তিনি।

গত ১১ নভেম্বর বিএনপিকে ২৩ শর্তে সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়। আগামী জাতীয় নির্বাচনকে মাথায় রেখে এই জনসভার মাধ্যমে নিজেদের শক্তি জানান দিতে চায় দলটি।

গত ৩ নভেম্বর বিএনপি জানায় জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে ৮ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে তারা করবে। পরে সমাবেশের তারিখ ১২ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়।

পাঠক মন্তব্য () টি

খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলার নেপথ্যে নিজাম হাজারী, সংবাদ সম্মেলনে আ'লীগ নেতা

সেদিন বেছে বেছে ডিবিসি, চ্যানেল আই, একাত্তর, বৈশাখী টেলিভিশন, প্রথম আলো ও…

ঠাকুরপাড়া ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি

পরিসংখ্যান খুঁজলে দেখা যাবে আওয়ামী লীগের আমলেই বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি সংখ্যালঘু নির্যাতনের…

সাতক্ষীরায় ফোনে ডেকে নিয়ে আ'লীগ নেতাকে গলা কেটে হত্যা

মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে নলতা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক সুলাইমান…

কপিরাইট ২০১৪ onlineBangla.com.bd
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: গুলবুদ্দিন গালীব ইহসান
অনলাইন বাংলা, ৬৯/জি গ্রিন রোড, পান্থপথ (নীচ তলা), ঢাকা-১২০৫।
ফোন: ৯৬৪১১৯৫, মোবাইল: ০১৯১৩৭৮৯৮৯৯
ইমেইল: contact.onlinebangla@gmail.com
Developed By: Uranus BD