সর্বশেষ আপডেট ১৩ ঘন্টা ৪৭ মিনিট আগে
আপনি আছেন হোম / বাংলাদেশ / জাতীয় / পরকীয়ার জেড়ে পরিকল্পিতভাবে বাড্ডায় বাবা-মেয়ে খুন

পরকীয়ার জেড়ে পরিকল্পিতভাবে বাড্ডায় বাবা-মেয়ে খুন

প্রকাশিত: ০৪ নভেম্বর ২০১৭ ১৪:৫২ টা | আপডেট: ০৪ নভেম্বর ২০১৭ ২১:০৯ টা

নিজস্ব প্রতিবেদক, অনলাইন বাংলাঃ

পরকীয়ার জেড়ে রাজধানীর বাড্ডায় বাবা ও মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। জামিল শেখকে হত্যা করতে দেখে ফেলায় মেয়ে নুসরাতকে নিহতের স্ত্রী আরজিনা বেগমের নির্দেশেই তার কথিত প্রেমিক শাহীন মল্লিক হত্যা করেছেন।  

শনিবার ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) আইন ও গণমাধ্যম শাখার মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে গুলশান বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) মোস্তাক আহমেদ এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, আরজিনা বেগম ও জামিল শেখ ছেলে-মেয়েকে নিয়ে বাড্ডায় ভাড়া বাসায় থাকতেন। একই বাড়িতে স্ত্রীকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন শাহীন। ওই বাড়ির প্রথম তলায় থাকতেন আরজিনারা। আর তৃতীয় তলায় থাকতেন শাহীন ও তার স্ত্রী মাসুমা।

মোস্তাক আহমেদ বলেন, মাসুমা সারাদিন অন্যের বাসায় কাজ করতেন। জামিল ছিলেন ড্রাইভার। আরজিনা বেগম ও শাহীন দুইজনই সারাদিন বাসায় থাকতেন। সে সুযোগে তাদের মধ্যে নানা কারণে নৈকট্য হয়।

গুলশান বিভাগের ডিসি বলেন, শাহীন বিভিন্নভাবে প্রশংসা করায় তার প্রতি দুর্বল হয়ে পড়ে আরজিনা। কয়েকদিন পর ওই বাড়ি ছেড়ে জামিল ও আরজিনা ময়নারবাগের ৩০৬ নম্বর বাড়ির ছাদে ৭ হাজার টাকায় বাসা ভাড়া নেয়।

মোস্তাক আহমেদ বলেন, নতুন বাসায় এসেও শাহীনের সাথে সম্পর্ক বজায় রাখেন আরজিনা। নিয়মিত তার সাথে ফোনে কথা বলতেন। শাহীনকে কাছে পেতে নতুন কৌশল অবলম্বন করেন আরজিনা।

তিনি বলেন, সংসারের খরচ কমানোর কথা বলে শাহীনের পরিবারকে সাবলেট দেয়ার পরামর্শ দেন স্বামী জামিলকে। পূর্বপরিচিত হওয়ায় শাহীন ও তার স্ত্রীকে ৩ হাজার টাকায় সাবলেট দেন জামিল।

মোস্তাক আহমেদ বলেন, নতুন বাসায় এসে আরজিনা ও শাহীনের সম্পর্ক আরো গভীর হতে শুরু করে। এক পর্যায়ে আরজিনা জামিলকে তালাক দিয়ে শাহীনের কাছে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তবে শাহীন তাকে তালাক না দেয়ার পরামর্শ দেন। পরবর্তীতে দুইজন মিলে জামিলকে হত্যার পরিকল্পনা করেন।

তিনি বলেন, বুধবার রাতে একই বিছানায় ঘুমান জামিল, আরজিনা, নুসরাত ও তার ছোট ভাই। পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী আরজিনা ঘরের দরজা খুলে রেখে ঘুমান। পরে শাহীন বাড়ির নিচ থেকে একটি কাঠের টুকরা নিয়ে ঘরে ঢুকে জামিলের মাথায় আঘাত করেন।

ডিসি বলেন, প্রথম আঘাতের পর জামিল উঠে যায় এবং জিজ্ঞেস করে কেন তাকে আঘাত করা হল। এরপর শাহীন কোনো কথা না বলে আরো কয়েকবার আঘাত করে তাকে হত্যা করেন।

মোস্তাক আহমেদ বলেন, এসময় ঘুম থেকে জেগে যায় মেয়ে নুসরাত। সে শাহীনের কাছে বাবাকে কেন হত্যা করা হলো জানতে চায় এবং চিৎকার করে কান্নাকাটি করতে থাকে।

তিনি বলেন, তখন নুসরাতকে হত্যার পরিকল্পনা করেন শাহীন। তবে প্রথমবার এতে আরজিনা সম্মতি দেননি। পরবর্তীতে বিপদে পড়ার আশঙ্কায় মেয়েকে হত্যার সম্মতি দেন আরজিনা। এরপর নুসরাতকে বিছানায় গলা টিপে হত্যার চেষ্টা করেন শাহীন। তখন নুসরাত চিৎকার করায় মুখে বালিশ চাপা দিয়ে তাকে মেরে ফেলা হয়।

মোস্তাক আহমেদ বলেন, জামিল ও নুসরাতকে হত্যার পর ছাদে শাহীন ও আরজিনা গল্প সাজাতে থাকেন। একপর্যায় তারা সিদ্ধান্ত নেন কেউ জিজ্ঞেস করলে বলবেন ডাকাতরা জামিল ও তার মেয়েকে হত্যা করেছে।

ডিসি বলেন, এছাড়াও ডাকাতরা যাওয়ার সময় তাকে ধর্ষণ করেছে বলে দাবি করবে আরজিনা। এই নাটক বাস্তবে রূপ দেয়ার জন্য সারা রাত ছাদের সিঁড়ির সামনে মুখ গোমড়া করে বসে ছিলেন আরজিনা।

মোস্তাক আহমেদ বলেন, পরদিন সকালেও পুলিশ গিয়ে তাকে সিঁড়ির সামনে বসে থাকতে দেখে। আর ওই রাতেই স্ত্রী মাসুমাকে নিয়ে খুলনায় পালিয়ে যান শাহীন।

ডিসি বলেন, এ ঘটনায় তদন্তে আশপাশের অনেকের সাথে কথা বলা হয়েছে। বিছানায় ঘুমিয়ে থাকা শিশুও কিছু তথ্য দিয়েছে। সব মিলে এ পর্যন্ত হত্যাকাণ্ডের সাথে এই দুইজনের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। তাদের আদালতে পাঠিয়ে রিমান্ড আবেদন করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

পাঠক মন্তব্য () টি

পশ্চিমবঙ্গে আল-কায়েদা সন্দেহে ২ বাংলাদেশি আটক

আটককৃত দুই বাংলাদেশি হলেন রিয়াজিদুল ইসলাম (২৫) ওরফে সুমন ও সানসাদ মিয়া…

রোহিঙ্গাদের ওপর নৃশংসতা যুদ্ধাপরাধের সামিল

রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নৃশংসতা যুদ্ধাপরাধের শামিল বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ সফররত…

বিমানবন্দরে অস্ত্র পরীক্ষার সময় কাস্টমস কর্মকর্তা গুলিবিদ্ধ

অস্ত্র পরীক্ষার সময় মিস ফায়ারে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাস্টমসের একজন কর্মকর্তা…

কপিরাইট ২০১৪ onlineBangla.com.bd
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: গুলবুদ্দিন গালীব ইহসান
অনলাইন বাংলা, ৬৯/জি গ্রিন রোড, পান্থপথ (নীচ তলা), ঢাকা-১২০৫।
ফোন: ৯৬৪১১৯৫, মোবাইল: ০১৯১৩৭৮৯৮৯৯
ইমেইল: contact.onlinebangla@gmail.com
Developed By: Uranus BD