সর্বশেষ আপডেট ১৩ ঘন্টা ৪২ মিনিট আগে
আপনি আছেন হোম / বাংলাদেশ / জাতীয় / নয়াপল্টনে আবদুর রহমান বিশ্বাসের জানাজা অনুষ্ঠিত

নয়াপল্টনে আবদুর রহমান বিশ্বাসের জানাজা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ০৪ নভেম্বর ২০১৭ ১২:৩৭ টা | আপডেট: ০৪ নভেম্বর ২০১৭ ১৪:৫৪ টা

নিজস্ব প্রতিবেদক, অনলাইন বাংলাঃ

সাবেক রাষ্ট্রপতি আবদুর রহমান বিশ্বাসের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১টায় রাজধানীর নয়াপল্টনের বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

বিএনপির চেয়ারপারসনের গণমাধ্যম শাখার সদস্য শামসুদ্দীন দিদার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সাবেক রাষ্ট্রপতি আবদুর রহমান বিশ্বাসের তৃতীয় নামাজে জানাজা দুপুর দেড়টায় (বাদ জোহর) সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে।

শামসুদ্দীন দিদার বলেন, এর পরই বিকাল ৪টায় (বাদ আসর) গুলশান আজাদ মসজিদে আরেকটি জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।

এরআগে শুক্রবার রাতে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে সাবেক রাষ্ট্রপতি আবদুর রহমান বিশ্বাস ইন্তেকাল করেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯১ বছর।

গত ১৭ জুন স্ত্রী হোসনে আরা রহমান ইন্তেকাল করার পর অনেকটা নিঃসঙ্গই ছিলেন সাবেক এ রাষ্ট্রপতি। মৃত্যুকালে হোসনে আরার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর।
 
১৯৯১ সালে বিএনপি সরকার গঠন করলে আবদুর রহমান বিশ্বাসকে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত করা হয়।

বরিশাল জেলার শায়েস্তাবাদে ১৯২৬ সালে ১ সেপ্টেম্বর আবদুর রহমান বিশ্বাসের জন্ম। বরিশাল শহরেই তিনি স্কুল ও কলেজজীবন শেষ করেন। এরপর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন।

আবদুর রহমান বিশ্বাস ১৯৫০-এর দশকে আইন পেশায় যোগদান করেন। তিনি ১৯৬২ এবং ১৯৬৫ সালে পূর্ব পাকিস্তান আইনসভার সদস্য নির্বাচিত হন।

সাবেক রাষ্ট্রপতি আবদুর রহমান বিশ্বাস ১৯৬৫ থেকে ১৯৬৯ পর্যন্ত পূর্ব পাকিস্তানের সংসদীয় সচিব হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৬৭ সালে তিনি পাকিস্তান প্রতিনিধিদলের সদস্য হিসেবে জাতিসঙ্ঘের ২২তম অধিবেশনে যোগদান করেন। মুক্তিযুদ্ধকালে তিনি স্বাধীনতার বিরোধী ছিলেন। তার আনুগত্য ছিল পাকিস্তান সরকারের প্রতি।

তিনি ১৯৭৪ এবং ১৯৭৬ সালে দুইবার বরিশাল বার সমিতির সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৭৭ সালে তিনি বরিশাল পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

১৯৭৯ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি বরিশাল থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৭৯-৮০ সালে তিনি জিয়াউর রহমানের মন্ত্রিসভায় পাটমন্ত্রী এবং ১৯৮১-৮২ সালে বিচারপতি আবদুস সাত্তারের মন্ত্রিসভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ছিলেন।

রাষ্ট্রপতি হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পূর্বে আবদুর রহমান বিশ্বাস ১৯৯১ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

এরপর ৪ এপ্রিল ১৯৯১ তিনি জাতীয় সংসদের স্পিকার নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৯১ সালে তিনি বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন এবং ১৯৯৬ সালের ৮ অক্টোবর তার মেয়াদ শেষ হয়।

শিক্ষাবিস্তারেরে উদ্দেশ্যে তিনি কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন। এই কাজের জন্য সরকার ১৯৫৮ সালে তাকে সেচ্ছাসেবি সমাজ কর্মী হিসেবে স্বীকৃতি দান করে।

এছাড়া সাটের দশকে কিছু দিন বাবুগঞ্জ পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন। পরে বরিশালে আইন পেশায় জড়িয়ে পড়েন।

পাঠক মন্তব্য () টি

পশ্চিমবঙ্গে আল-কায়েদা সন্দেহে ২ বাংলাদেশি আটক

আটককৃত দুই বাংলাদেশি হলেন রিয়াজিদুল ইসলাম (২৫) ওরফে সুমন ও সানসাদ মিয়া…

রোহিঙ্গাদের ওপর নৃশংসতা যুদ্ধাপরাধের সামিল

রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নৃশংসতা যুদ্ধাপরাধের শামিল বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ সফররত…

বিমানবন্দরে অস্ত্র পরীক্ষার সময় কাস্টমস কর্মকর্তা গুলিবিদ্ধ

অস্ত্র পরীক্ষার সময় মিস ফায়ারে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাস্টমসের একজন কর্মকর্তা…

কপিরাইট ২০১৪ onlineBangla.com.bd
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: গুলবুদ্দিন গালীব ইহসান
অনলাইন বাংলা, ৬৯/জি গ্রিন রোড, পান্থপথ (নীচ তলা), ঢাকা-১২০৫।
ফোন: ৯৬৪১১৯৫, মোবাইল: ০১৯১৩৭৮৯৮৯৯
ইমেইল: contact.onlinebangla@gmail.com
Developed By: Uranus BD