সর্বশেষ আপডেট ১৩ ঘন্টা ৫৫ মিনিট আগে
আপনি আছেন হোম / অর্থনীতি / ব্যাংক-বীমা / সিলেবাসের বাইরে শিক্ষার্থীদের জ্ঞান নেই: গভর্নর

সিলেবাসের বাইরে শিক্ষার্থীদের জ্ঞান নেই: গভর্নর

প্রকাশিত: ২৮ অক্টোবর ২০১৭ ১৯:৪১ টা

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক, অনলাইন বাংলাঃ

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বলেছেন, শিক্ষার্থীরা এখন পাঠ্যবইয়ের বৃত্তেই বন্দি থাকে। এখন ছাত্রছাত্রীরা পত্রপত্রিকা পড়ে না। দেশ-বিদেশের খোঁজখবর রাখে না। সিলেবাসের বাইরে এই শিক্ষার্থীদের তেমন কোনো জ্ঞান নেই।

শনিবার সকালে রাজধানীর পুরানা পল্টনের ফার্স হোটেল অ্যান্ড রিসোর্ট মিলনায়তনে আয়োজিত 'মার্কেন্টাইল ব্যাংক আবদুল জলিল শিক্ষাবৃত্তি' প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।

উল্লেখ্য, এ বছর মোট ১ হাজার ১০২ জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দেয়া হয়েছে ১ কোটি ৬০ লাখ টাকা। এরমধ্যে জেএসসি উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের প্রত্যেককে ১৫ হাজার টাকা, এসএসসি উত্তীর্ণদের ১৮ হাজার ও এইচএসসি উত্তীর্ণদের ১৯ হাজার টাকার চেক তুলে দেয়া হয়। শুধু ঢাকা বিভাগ  ৪০জন প্রতিবন্ধীসহ ১৬৩ জন কৃতি শিক্ষার্থীকে এই শিক্ষাবৃত্তি দেয়া হয়েছে।

কৃতি শিক্ষার্থীদের হাতে বৃত্তির চেক ও প্রশংসাপত্র তুলে দেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির।

প্রথমেই দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সাবিনা ইয়াসমিনের হাতে বৃত্তির চেক ও প্রশংসাপত্র তুলে দেয়া হয়।

এসময় পাঠ্যবইয়ের বাইরে ছাত্রছাত্রীদের পত্রপত্রিকা পড়ে দেশ-বিদেশের খবর জানার পরামর্শ দেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর।

তিনি বলেন, সিলেবাসের বাইরে এই সময়ের শিক্ষার্থীদের জ্ঞান না থাকায় পাঠ্যবইয়ের বৃত্তেই তারা বন্দি থাকে। এ জন্য অবশ্য ছাত্রছাত্রীরা নয়, দায়ী তাদের অভিভাবকরা।

ফজলে কবির বলেন, তারাই সন্তানকে পাঠ্যপুস্তকে ব্যস্ত রাখেন। এ কারণে সিলেবাসের বাইরে অন্যকিছু পড়ার সুযোগ হয় না তাদের।

বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারা মেধার স্বীকৃতি পেয়েছেন। এটি কারও দয়া বা করুণা নয়। এর মর্যাদা রেখে দেশের প্রতি দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করে সুনাগরিক হয়ে গড়ে উঠতে হবে আপনাদের।

ফজলে কবির বলেন, বাংলাদেশ যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় উদ্যমী ভূমিকা পালন করতে সক্ষম। চলতি বছরের শুরুতে দেশের হাওর অঞ্চলে ও মধ্যাঞ্চলে ৩২টি জেলার বন্যা মোকাবেলা করেছে বাংলাদেশ।

তিনি বলেন, সবশেষ মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের আশ্রয় দেয়ার চ্যালেঞ্জও মোকাবেলা করছে। তবে রোহিঙ্গা সমস্যা সরকারের একার নয়, এটি সামাজিক দায়িত্ব।

দেশের ব্যাংকগুলোকে করপোরেট সোশ্যাল রেসপন্সিবিলিটি (সিএসআর) তহবিল বাড়িয়ে রোহিঙ্গাদের সহায়তার জন্য এগিয়ে আসার আহ্বান জানান বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর।

শিক্ষা খাতের বরাদ্দ ঠিক রেখে অন্য খাতের ব্যয় কমিয়ে ব্যাংকগুলো শরণার্থীদের পাশে এগিয়ে আসতে পারে বলে মত দেন ফজলে কবির।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মার্কেন্টাইল ব্যাংক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান শহীদুল আহসান, মার্কেন্টাইল ব্যাংক পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান সাহিদ রেজা ও ব্যাংকটির এমডি ও সিইও কাজী মসিহুর রহমান।

পাঠক মন্তব্য () টি

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের ৭ পরিচালকের পদত্যাগ

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের চারজন স্বতন্ত্র ও তিনজন শেয়ারধারী পরিচালক সাতজন পদত্যাগ করেছেন।

বাংলাদেশকে বিশ্বব্যাংকের ৩৬৫৬ কোটি টাকা ঋণ

বিদেশে রপ্তানি ও বিনিয়োগের পরিবেশ তৈরিতে দুটি প্রকল্পের আওতায় বিশ্বব্যাংক থেকে ৪৫…

খেলাপি ঋণ সরকারি ব্যাংকের প্রধান সমস্যা: অর্থমন্ত্রী

ব্যাংকের সংখ্যা নিয়ে ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট প্রশ্ন তুললেও অর্থমন্ত্রী বলেন, ব্যাংকের…

কপিরাইট ২০১৪ onlineBangla.com.bd
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: গুলবুদ্দিন গালীব ইহসান
অনলাইন বাংলা, ৬৯/জি গ্রিন রোড, পান্থপথ (নীচ তলা), ঢাকা-১২০৫।
ফোন: ৯৬৪১১৯৫, মোবাইল: ০১৯১৩৭৮৯৮৯৯
ইমেইল: contact.onlinebangla@gmail.com
Developed By: Uranus BD