সর্বশেষ আপডেট ১ দিন ৫ ঘন্টা ১২ মিনিট আগে
আপনি আছেন হোম / মতামত / কলাম / বঙ্গোপসাগরের নামকরণ এবং কিছু প্রাসঙ্গিক আলোচনা

বঙ্গোপসাগরের নামকরণ এবং কিছু প্রাসঙ্গিক আলোচনা

প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ ০২:২৫ টা | আপডেট: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ ২২:০৫ টা

মানছুরা আক্তারঃ

বঙ্গ+উপ+সাগর=বঙ্গোপসাগর। আরো সহজে বলা যায় বঙ্গদেশ বা বাংলাদেশের উপসাগর।

উপসাগরসমূহের হিসেব করতে গেলে এটিই পৃথিবীর বৃহত্তম উপসাগর। নামে বঙ্গোপসাগর হলেও এই সাগরের সাথে যুক্ত রয়েছে আরো দেশের সীমানা। ত্রিকোণাকৃতি এই জলরাশির পশ্চিমে রয়েছে ভারত ও শ্রীলংকা, উত্তরে বাংলাদেশ ও মায়ানমার, পশ্চিমে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ। ভারত মহাসাগরের ৮৩৯০০০ বর্গমাইল জুড়ে এর অবস্থান। পদ্মা, হুগলি, ইরাবতি, গোদাবরি, মহানন্দা, কৃষ্ণা, কাবেরি, ব্রক্ষ্মপুত্র ও তার শাখা যেমন যমুনা, মেঘনা ইত্যাদি নদী বঙ্গোপসাগরে পতিত হয়েছে।

বঙ্গোপসাগরের নামকরণের ইতিহাস সম্পর্কে তেমন কিছু জানা যায় না। তথাপি, এ নামকরণ থেকে সমুদ্র আইনের পাঠকসমূহের মনে কিছু প্রশ্ন আসা স্বাভাবিক।

১৯৮২ সালের সমুদ্র আইন বিষয়ক জাতিসংঘের সনদের ১০ অনুচ্ছেদে স্পষ্ট করে উল্লেখ করা হয়েছে-

"(১) এই অনুচ্ছেদ শুধুমাত্র এমন উপসাগরের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে যার উপকূলভাগ একটিমাত্র রাষ্ট্রের অধীন।"

"(২) এই অনুচ্ছেদের উদ্দেশ্য সাধনকল্পে, উপসাগর বলতে এমন এক সুচিহ্নিত জলখাতকে বুঝায়, যা উহার মোহনার প্রশস্ততার তুলনায় এতো অধিক ভিতরে প্রবেশ করেছে যে, স্থলবেষ্টিত জলরাশি ধরে রাখতে পাড়ে এবং যা উপকূলের বাঁকমাত্র নয়।"

এই অনুচ্ছেদটি বিশ্লেষণ করলে উপসাগরের নিম্নোক্ত বৈশিষ্ট্যসমূহ পাওয়া যায়:

১. সুনির্দিষ্ট জলখাত
২. স্থলবেষ্টিত
৩. উপকূলের বাঁকমাত্র নয়
৪. ক্ষেত্রফল অর্ধবৃত্তের সমান বা অধিক
৫. উপকূলভাগ একটিমাত্র রাষ্ট্রের অধীন

এবারে আসা যাক উপসাগর হিসেবে বঙ্গোপসাগরের উপযুক্ততা প্রসঙ্গে।

UNCLOS, 1982 এর ১০ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী বঙ্গোপসাগর আদতেই উপসাগর নয়। কেননা উল্লেখিত বৈশিষ্ট্যসমূহের সবগুলো উপস্থিত নেই।

বাস্তবেও দেখা যায় যে রাষ্ট্রসমূহের ভিত্তিরেখা অঙ্কনের ক্ষেত্রে ১০(৩), ১০(৪), ১০(৫) অনুচ্ছেদসমূহে নির্দেশিত সরলরৈখিক নীতি অনুসরন না করে বরং অনুচ্ছেদ ৫ ও ৭ অনুযায়ী সাধারণ ভিত্তিরেখা অঙ্কন করা হয়।

এইসব হিসেব অনুযায়ী, বঙ্গোপসাগরকে উপসাগরের পরিবর্তে সাগর হিসেবে বিবেচনার অবকাশ রয়েছে বলে বোধ হয়।

তথাপি, "নামের বড়াই কর নাক, নাম দিয়ে কি হয়" নীতি অনুসরণ করে যেমন কানা ছেলের নাম পদ্মলোচন রাখা যায়, তেমনি তরুণ কুমারও একদিন দ্বার পরিগ্রহ করেন এবং বার্ধক্যে উপনীত হন। সেই বিবেচনায় বঙ্গোপসাগরকে উপসাগর নামে ডাকায় কোনো বাঁধা নেই।
 
মানছুরা আক্তার: শিক্ষক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি (বিএসএমআরএমইউ), ঢাকা।

পাঠক মন্তব্য () টি

ইসলাম ও সেক্যুলারিজমের সম্পর্ক প্রসঙ্গে

'সেক্যুলারিজম এবং ধর্ম ও রাষ্ট্রের মধ্যে সম্পর্ক বিষয়ে তিউনেসীয় নেতা অধ্যাপক রশিদ…

দুর্লভ সাঁইজির বয়ানে লালন সাঁইজি

ছেলেটি কথা বললো। কোরানে ভুল উচ্চারণ বিষয়ে বললো। মলম শাহ তো হতবাক।

আবেগী গোলামদের টিস্যু দাও প্লিজ

গোলামেরা একটু আদেখলা হয়, ফ্যাঁচফ্যাঁচে হয়, অল্পতেই চোখে পানি চইলা আসে তাদের।

কপিরাইট ২০১৪ onlineBangla.com.bd
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: গুলবুদ্দিন গালীব ইহসান
অনলাইন বাংলা, ৬৯/জি গ্রিন রোড, পান্থপথ (নীচ তলা), ঢাকা-১২০৫।
ফোন: ৯৬৪১১৯৫, মোবাইল: ০১৯১৩৭৮৯৮৯৯
ইমেইল: contact.onlinebangla@gmail.com
Developed By: Uranus BD