সর্বশেষ আপডেট ১ দিন ৫ ঘন্টা ১৩ মিনিট আগে
আপনি আছেন হোম / বাংলাদেশ / অপরাধ / 'যে হাত দিয়ে খাওয়াছি তেল দিছি, সে হাত দিয়ে মারলাম'

'যে হাত দিয়ে খাওয়াছি তেল দিছি, সে হাত দিয়ে মারলাম'

প্রকাশিত: ১০ জানুয়ারি ২০১৭ ২৩:০৭ টা | আপডেট: ১০ জানুয়ারি ২০১৭ ২৩:৩২ টা

বার্তা ডেস্ক, অনলাইন বাংলাঃ

‘আমি এই দুই হাত দিয়ে ওদের খাওয়াছি (খাওয়াইছি), তেল দিছি আর আজ আমি সেই হাত দিয়ে মারলাম আমাক (আমাকে), তোমারা মাপ করে দেও (দিও), আমাদের কপলে (কপালে) এ ছিল ওরা দুই জন নিষ্পাপ, আমার মৃত্যুর জন্য কেও (কেউ) দাই (দায়ী) না। ইতি আনিকা।’

তিন বছরের ছেলে আবদুল্লাহ এবং পাঁচ বছরের মেয়ে শামীমাকে গলা কেটে হত্যার পর নিজেও ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যার আগে এমন চিঠি লিখে গেছেন ২০ বছরের তরুণী মা আনিকা।

মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর মিরপুরের দারুস সালাম থানার ছোট দিয়াবাড়ি পানির পাম্পসংলগ্ন একটি টিনশেড বাসায় মর্মস্পর্শী ঘটনাটি ঘটেছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, অভাবের কারণে আনিকার সঙ্গে তার স্বামী সেলুনকর্মী শামীম হোসেনের প্রায়ই ঝগড়া হতো। মঙ্গলবার বঙ্গব্ন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় যান শামীম। এই ফাঁকে স্ত্রী মর্মান্তিক ঘটনার জন্ম দেন।

নিহত আনিকার বাবার বাড়ি নওগাঁর মহাদেবপুর। আর স্বামী শামীম হোসেনের বাড়ি গোপালগঞ্জ জেলার মোকসেদপুর থানার ভাবড়াশুড় গ্রামে।

দারুস সালাম থানার ওসি তদন্ত ফারুকুল আলম সংবাদমাধ্যমকে, সংবাদ পেয়ে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে ২৯/১ ছোট দিয়াবাড়ির ওই বাসার দরজা ভেঙে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় ওই গৃহবধূকে পাওয়া যায়। তার দুই সন্তানের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়।

তিনি বলেন, আলামত হিসেবে ঘর থেকে রক্ত মাখা বালিশ, চাদর, ওড়না, কাপড়-চোপড়ের সঙ্গে একটি চিরকটু উদ্ধার করা হয়।

মিরপুর বিভাগের দারুস সালাম জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) সৈয়দ মামুন মোস্তফা সাংবাদিকদের বলেন, সম্ভবত চিরকুটটা আনিকার হাতের লেখা। সেখানে তিনি মৃত্যুর জন্য কাউকে দায়ী না করলেও স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া ও অভিমানের বিষয়টি তুলেছেন। এ ব্যাপারে স্বামীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটকের চেষ্টা চলছে।

চিরকুটে আনিকা তার স্বামী শামীমকে উদ্দেশ্য করে লেখেন, ‘শামীম তোমার একটা ভুলের জন্য এত বড় ঘটনা, তুমি ভেবেছ আমি শুধু শুনবো তা। তুমি সবার কথা ভাবো আমাদের কথা ভাবো, আমি সবাইকে ছেড়ে যাচ্ছি। থাকবো, না পৃথিবী ছেড়ে। আর বলেছিলাম না, আমি যেখানে ওরাও সেখানে একটাই কষ্ট মা ভাই বোন নানি আর ওনেকের (অনেকের) মুখ দেখতে পালাম (পারলাম) না। ছেলে মেয়ে নেয়ে (নিয়ে) গেলাম সবাই ভালো থাকো।’

পাঠক মন্তব্য () টি

'আমি তোর বাপ' বলে কৃষককে পুলিশের নির্যাতন

চোখে টর্চ লাইটের আলো মারার প্রতিবাদ করায় ঝিনাইদহের এক কৃষককে বেধড়ক মারধর…

সাংবাদিক জিয়াকে গাড়ির ধাক্কা, মডেল কল্যাণ গ্রেপ্তার

ফটো সাংবাদিক জিয়া ইসলামকে ধাক্কা মেরে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় মডেল ও অভিনেতা…

না'গঞ্জের সাত খুন মামলার বাদীকে হত্যার হুমকি

নারায়ণগঞ্জের বহুল আলোচিত সাত খুন মামলার বাদী সেলিনা ইসলাম বিউটিকে হত্যার হুমকি…

কপিরাইট ২০১৪ onlineBangla.com.bd
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: গুলবুদ্দিন গালীব ইহসান
অনলাইন বাংলা, ৬৯/জি গ্রিন রোড, পান্থপথ (নীচ তলা), ঢাকা-১২০৫।
ফোন: ৯৬৪১১৯৫, মোবাইল: ০১৯১৩৭৮৯৮৯৯
ইমেইল: contact.onlinebangla@gmail.com
Developed By: Uranus BD